যে কোন দুর্যোগ ও মহামারিতে আ’লীগ মানুষের পাশে ছিল, থাকবে: এমপি জ্যাকব

চরফ্যাশন অফিস: যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেছেন, বাংলাদেশে যে কোন দুর্যোগ ও মহামারিতে আওয়ামী লীগ মানুষের পাশে ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

উপকূলীয় এলাকায় প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ ও আর্থিক সহায়তা দেয়ার সময় তিনি একথা বলেন।

এমপি জ্যাকব বলেন, নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে সব সময় হাত উঠিয়ে রোগ মুক্তির জন্য দোয়া প্রার্থনা করুণ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘূর্ণিঝড় আম্ফান পরবর্তী দিন থেকে উপকূলে দুর্গত ও ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ এবং ঝড়ে বিধ্বস্ত ঘর পুনঃনির্মাণে নির্দেশনা অনুযায়ী আমি আমার নির্বাচনী এলাকা ভোলার চরফ্যাশনে অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছি।

তিনি আরও বলেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে স্থানীয়ভাবে তালিকা অনুযায়ী ঝড়ে বিধ্বস্ত ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর পুনঃনির্মাণ করে দেওয়া হবে। শেখ হাসিনা যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন কোন অসহায় মানুষ গৃহহীণ থাকবে না।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে বিকাল সাড়ে ৪টায় পর্যন্ত ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আম্ফানে অসহায় ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী তুলেদেন এমপি জ্যাকব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন আখন, চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভিপি, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মনির আহমেদ শুভ্র, সাংগঠনিক সম্পাদক এস.এম মোর্শেদ, আবুল কাসেম মেলেটারি, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতা মো. আনিসুর রহমান, আসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান একে এম সিরাজুল ইসলাম ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরে আলম মাস্টার।

প্রসঙ্গত, শুধু ঘূর্ণিঝড় আম্ফান নয়, করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। মহামারি করোনার কারণে কর্মহীন দরিদ্র মানুষকে সহায়তা দিতে ব্যক্তিগত অর্থায়নে “মানুষ মানুষের জন্য”কর্মসচী গ্রহণ করেন এমপি জ্যাকব। এ কর্মসূচীর আওতায় দু’দফায় ২৫ লাখ করে ৫০ লাখ টাকা অনুদান দেন ভোলা-৪ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি। দুই ধাপে তিনি চরফ্যাশন ও মনপুরাবাসীর জন্য ৫০ লাখ টাকা অনুদান প্রদান করেন। ব্যক্তিগত তহবিল থেকে মনপুরায় ও চরফ্যাশনের প্রদান অব্যাহত রেখেছেন এমপি জ্যাকব। করোনা ভাইরাসের কারণে চরফ্যাশনের খাবার হোটেল ও রেস্তরাগুলো বন্ধ থাকায় বাজারে থাকা অপ্রকৃতিস্থ লোকজন ও কুকুরগুলো যখন অনাহারে দিন কাটাচ্ছিল তখন সেইসব অনাহারী কুকুরগুলোর জন্য খাবারের ব্যবস্থা করে অনাহারী কৃকুরগুলোরজন্য খাবারের ব্যবস্থা করে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন তিনি। যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া পুরো উপজেলায় ত্রাণ তৎপরতা পরিচালনার জন্য ১২ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিও গঠন করেছেন এমপি জ্যাকব।
শীর্ষবাণী ডটকম/এনএ