হেনোলাক্স গ্রুপের এমডি ও পরিচালক গ্রেপ্তার

বহুল আলোচিত জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে নিজের গায়ে আগুন দিয়ে গাজী আনিস নামক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে আমিন ম্যানুফাকচারিং কোম্পানি এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আমিন ও পরিচালক ফাতেমা আমিন কে রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) তাদের গেপ্তার করা হয়।

এর আগে দুপুরে আনিসের বড় ভাই নজরুল ইসলাম শাহবাগ থানায় এ মামলা করেন বলে শাহবাগ থানার এসআাই গোলাম হোসেন খান জানান। তিনি বলেন, মামলায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এর আগে গ সোমবার বিকেল ৫টার দিকে গাজী আনিস জাতীয় প্রেস ক্লাবে নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান। আশঙ্কাজনক দগ্ধ অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার বিকালে প্রেসক্লাবের ফটকের ভেতরে খোলা স্থানে আনিস নিজের গায়ে আগুন দেন। তার গায়ে আগুন জ্বলছে দেখে আশপাশ থেকে সবাই ছুটে যান। তারা পানি ঢেলে আগুন নেভান। তবে ততক্ষণে তার শরীরের বড় অংশ পুড়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন মঙ্গলবার ভোর ৬টা ১০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

তার ভাই নজরুল ইসলাম জানান, তাদের বাবা মৃত ইব্রাহীম হোসেন বিশ্বাস। ৯১-৯৫ সাল পর্যন্ত গাজী আনিস কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। তার স্ত্রী স্বপ্না। ৩ মেয়ের জনক তিনি। ব্যবসার পাশাপাশি চাকরিও করতেন। ওই কোম্পানির কাছে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকা পেতেন। এ জন্য কয়েক দফায় সংবাদ সম্মেলনও করেছেন। ওই টাকা না পাওয়ায় তিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।