রাশিয়ায় করোনার টিকা দেয়া শুরু

শীর্ষবাণী ডেস্ক : সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা নাগরিকদের করোনার টিকা প্রয়োগ শুরু করেছে রাশিয়া।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, নিজেদের বানানো স্পুটনিক ভি টিকার মাধ্যমে শনিবার রাজধানী মস্কোতে এ কর্মসূচি শুরু করল দেশটি।

প্রথম দিন ৭০টি ক্লিনিকে স্পুটনিক ভি এর ডোজ দেয়া হচ্ছে বলে মস্কোর করোনা টাস্ক ফোর্স জানায়।

শুরুতে টিকা নিচ্ছেন চিকিৎসক, চিকিৎসা কর্মী, শিক্ষক এবং সমাজসেবা কর্মী। কারণ মহামারিটির সংস্পর্শে আসার বেশি ঝুঁকি নিয়েছিলেন তারা।

প্রাথমিক স্কুলের এক শিক্ষকের মোবাইলে টাস্ক ফোর্সের পাঠানো একটি বার্তা রয়টার্স দেখেছে।

এতে বলা হয়, ‘আপনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন এবং কভিড-১৯ টিকা গ্রহণে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পাবেন। বিনামূল্যে এ টিকা দেয়া হবে।’

মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন বলেন, ‘স্কুল, স্বাস্থ্য সেবা আর সমাজকর্মীদের আগে টিকাটি দেয়া হবে। তবে যতো টিকা আসতে থাকবে, এই তালিকা তখন আরও বড় হতে শুরু করবে।’

ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে শুক্রবার তিনি লেখেন, প্রথম পাঁচ ঘণ্টায় ৫ হাজার মানুষ রেজিস্ট্রেশন করেছেন, যাদের সবাই শিক্ষক, চিকিৎসক, সমাজসেবা কর্মী।

এখন পর্যন্ত রাশিয়ায় ২৩ লাখ ৮২ হাজার ১২জন করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হয়েছে, যাদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪১ হাজার ৭৩০ জনের।

রাশিয়ায় এই মহামারির কেন্দ্র হয়ে উঠেছে মস্কো, যেখানে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে এবং কোনো তথ্য প্রকাশ না করেই আগস্ট মাসে স্থানীয়ভাবে ব্যবহারের জন্য স্পুটনিক ভি নামের টিকার অনুমোদন দেয় রাশিয়া। এখন সেটির ব্যবহারও শুরু হয়েছে।

টিকাটির নির্মাতারা বলছেন, এটি ৯৫ শতাংশ কার্যকরী এবং বড় ধরনের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তৈরি করে না। তবে এখনো টিকাটির গণ-পরীক্ষার কার্যক্রম শেষ হয়নি।
শীর্ষবাণী/এনএ