যৌতুকের জন্য দুই সন্তানসহ ৩ বোনের আত্মহত্যা, অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন দুজন

ভারতে যৌতুকের জন্য নির্যাতনের শিকার হয়ে দুই সন্তানকে নিয়ে তিন গৃহবধূ একসঙ্গে আত্মহত্যা করেছেন। তারা সম্পর্কে বোন। একই পরিবারে তাদের বিয়ে হয়েছিল। মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থান রাজ্যে।

শনিবার এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আরও দুঃখজনক বিষয় হলো ওই তিন গৃহবধূর মধ্যে দুজন ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা। আর শিশুদের মধ্যে একজনের বয়স চার বছর, আরেকটির বয়স ছিল মাত্র ২৭ দিন।

এনডিটিভি জানায়, ওই তিন বোনের নাম কালু মিনা (২৫), মমতা (২৩) ও কমলেশ (২০)। রাজস্থানের জয়পুর জেলার ডুডু এলাকার ছাপিয়া গ্রামের একই পরিবারের তিন ভাইয়ের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল ওই তিন বোনের।

পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন ওই তিন বোনকে নিয়মিত হয়রানি এমনকি মারধরও করতেন।

এদিকে, জিনিউজ বলছে- গত বুধবার থেকে দুই সন্তানসহ নিখোঁজ ছিলেন ওই তিন নারী। পরে শনিবার শ্বশুরবাড়ির কাছে একটি কুয়া থেকে তাদের মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর তাদের স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত দুই শিশু কালু মিনার সন্তান। অন্যদিকে মমতা ও কমলেশ সন্তানসম্ভবা ছিলেন। তাদের পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য তাদের ওপর অত্যাচার করা হতো। দুই সপ্তাহ আগে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মারধরে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় কালু মিনাকে। তার চেখে গুরুতর আঘাত লাগে। কয়েকদিন আগেই তিনি হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফিরেছিলেন।

নিজেদের পায়ে দাঁড়ানোর আপ্রাণ চেষ্টা করতেন তিন বোন। কালু মিনা স্নাতক চূড়ান্ত বর্ষে পড়তেন, মমতা রাজ্য পুলিশের পরীক্ষায় পাস করেছিলেন এবং কমলেশ ভর্তি হয়েছিলেন এক কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে।