মারাই গেলেন স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ গৃহবধূ হীরা

যশোর প্রতিনিধি : অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলেন যশোরের অভয়নগরের অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ হীরা বেগম (৩৩)। গত বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) স্বামীর দেয়া আগুনে পুড়ে যাওয়া হীরাকে বুধবার (২ ডিসেম্বর) ঢাকায় নেয়ার পথে মারা যান। ঘটনার পর থেকে তার স্বামী বিল্লাল হোসেন পলাতক।

নিহত হীরা বেগম অভয়নগর উপজেলার সিঙ্গাড়ি গ্রামের গরুহাট এলাকার বিল্লাল সরদারের স্ত্রী।

হীরা বেগমের ভাই ইয়াছিন সরদার জানান, বিয়ের পর থেকে হীরার স্বামী বিল্লাল তাকে ভারতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। রাজি না হওয়ায় তাকে মারপিট ও নির্যাতন করতো। কিন্তু তার পরও যেতে রাজি না হওয়ায় গত ২৬ নভেম্বর হীরার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বিল্লাল। পরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ওইদিনই তাকে খুলনায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ছয়দিন চিকিৎসার পর তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছিল। বুধবার ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক টুম্পা কুন্ডু বলেন, আগুনে হীরা বেগমের বুক, পিঠ ও দুই হাতের সিংহভাগই পুড়ে গিয়েছিল। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছিল।

অভয়নগর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল জানান, স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ হীরা বেগম ঢাকায় নেয়ার পথে মারা গেছেন। আগুন দেয়ার ঘটনায় নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর হত্যা মামলা হবে। আসামিকে গ্রেফতারে পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।