বাংলাদেশ-সৌদি ৪২ ফ্লাইট বাতিল, যা বললেন বিমানের এমডি

শীর্ষ বাণী ডেস্ক: কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ২১ ডিসেম্বর থেকে এক সপ্তাহের জন্য জেদ্দা, রিয়াদ ও দাম্মামগামী বাংলাদেশ বিমানের সব ফ্লাইট বাতিল করেছে সৌদি আরব সরকার। এতে সৌদি এবং বাংলাদেশে আটকা পড়েছেন হাজার হাজার যাত্রী।

এ নিয়ে সোমবার (২১ ডিসেম্বর) দুপুরে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন বাংলাদেশ বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোকাব্বির হোসেন।

তিনি বলেন, সৌদি সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশ বিমানের মোট ২১টি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ফলে বিমানের মোট ৫ হাজার যাত্রী আটকা পড়েছেন। আর সৌদিতে আটকা পড়েছেন ৬ হাজার যাত্রী। আসা-যাওয়া মিলে মোট ৪২টি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পুনরায় ফ্লাইট চালু হলে যাত্রীদের নতুন করে টিকিট নিতে হবে। তবে কোনো ফি কাটা হবে না। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আটকেপড়া যাত্রীদের আসন বরাদ্দ করা হবে।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করেছে দেশটির জেনারেল অথরিটি ফর সিভিল অ্যাভিয়েশন (জিএসিএ)।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) এক বিজ্ঞপ্তিতে এই নির্দেশনার কথা জানিয়েছে সংস্থাটি। এই নির্দেশনা কার্যকর হবে ২১ ডিসেম্বর মধ্যরাত থেকে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আগামী এক সপ্তাহের জন্য সৌদি আরবে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ওঠানামা বন্ধ থাকবে। এই বন্ধের সময়সীমা আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হতে পারে।

তবে, বর্তমানে সৌদিতে অবস্থানরত অন্য দেশের বিমান সংস্থার কোনো ফ্লাইট থাকলে তা সৌদি ত্যাগ করতে পারবে বলে জানিয়েছে জিএসিএ।

কার্গো বিমান এই নিষেধাজ্ঞার আওতার বাইরে থাকবে। এ ছাড়া জরুরি প্রয়োজনে বিশেষ বিবেচনায় যাত্রীবাহী বিমান পরিবহনের ক্ষেত্রেও এই নির্দেশনার শিথিলতার কথা জানিয়েছে সংস্থাটি।

করোনা সংক্রমণের গতিবিধি পর্যালোচনা করে পরবর্তীতে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

শীর্ষ বাণী/এন