পিছিয়ে যাওয়া এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি এখনও চূড়ান্ত করা সম্ভব নয়। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছানোর দুই সপ্তাহ পর সময়সূচি চূড়ান্ত করা হবে।

বুধবার (৬ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান তিনি।

বন্যাকবলিত অঞ্চলে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা বন্যার খোঁজ রাখছি নিয়মিত। শহর থেকে হয়ত পানি নেমে গেছে, তবে গ্রাম পর্যায়ে কোথাও কোথাও পানি আছে। বন্যায় আমাদের অনেক শিক্ষার্থী বই হারিয়েছি। আমরা নতুন করে এটা খোঁজ নিচ্ছি, কতজন শিক্ষার্থীর নতুন বই লাগবে। আমাদের কাছে প্রতি বছর স্টকে কিছু বই থাকে। কিন্তু এবার বন্যায় এত ক্ষতি হবে, সেটা আমাদের বিবেচনায় ছিল না। যদি প্রয়োজন হয়, আমরা বই ছাপিয়ে ফেলব। শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে দেব। বই হাতে পৌঁছানোর পর অন্তত দুই সপ্তাহ তাদের সময় দিতে হবে। এরপর পরীক্ষা নিতে হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। সংক্রমণ অনেক বেড়েছে। টিকা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। কিন্তু করোনা বাড়লেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই। আমাদের ১২ বছরের বেশি বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া আছে। ১২ বছরের কম বয়সীদের দ্রুত টিকা দিতে পারলে হয়ত সেটির প্রয়োজন হবে না। আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা ভাবছি না। বরং স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার চেষ্টা করছি।