পরিচ্ছন্ন কর্মী ঝরনা রানীর কি দোষ? আধুনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে বয়কটের দাবি

শীর্ষবাণী, চরফ্যাশন : ভোলার চরফ্যাশনে আধুনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে স্বেচ্ছায় ব্লাড দান করতে আসা ব্যক্তির ব্লাড নেওয়ার সময় পরিচ্ছন্ন কর্মী ঝরনা রানী পা দিয়ে ব্লাড ব্যাগ নাড়াচাড়া করার অভিযোগে, সেন্টার কর্তৃপক্ষ এক লিখিত বিবৃতিতে ঝরনা রানীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন৷ এ খবর শুনে চরফ্যাশনের বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ প্যাথলজিস্ট ব্যতীত পরিচ্ছন্ন কর্মী ঝরনা রানীকে দিয়ে ব্লাড সংগ্রহের কাজ করানোর অপরাধে চরফাশন আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে বয়কট ও শাস্তির আওতায় আনার অনুরোধ জানিয়েছেন৷

রবিবার (১৮ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টায় চরফ্যাশন আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে৷ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ভোলা জেলা নাগরিক ফোরাম (দক্ষিণ), চিলেকোঠা, বন্ধন ব্লাড ফাউন্ডেশন, গ্যালাক্সি স্বেচ্ছাসেবী ফাউন্ডেশন, জলবায়ু ফোরামসহ অসংখ্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন৷

অনুসন্ধানে জানা যায়, চরফ্যাশন আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সেবিকা হিসেবে যাদেরকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তারা প্রায়ই গার্মেন্টস কর্মী৷ নেই কোনো শিক্ষা বা প্রাথমিক ধারণা৷ কিছুদিন পূর্বে সিজার না করার অপরাধে এক গর্ভবতী মাকে হাসপাতালের বেড থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগও পাওয়া যায়৷

ভোলা জেলা নাগরিক ফোরাম (দক্ষিণ) এর সভাপতি এম আবু সিদ্দিক জানান, প্যাথলজিস্ট ব্যতীত পরিচ্ছন্নকর্মীকে দিয়ে ব্লাড সংগ্রহের কাজ করানোর জন্য চরফ্যাশন আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষ এর দায় এড়াতে পারেন না৷ ইতিপূর্বে এ সেন্টারের মালিক পক্ষের নির্দেশে একজন মুমূর্ষু রোগীকে বেড থেকে নিচে ফেলে দেওয়া হয়েছিল৷ সে সংবাদ দৈনিক যুগান্তর, ভোরের কাগজসহ একাধিক জাতীয় ও অনলাইন পত্রিকায় আমারা দেখেছি৷ এসকল ঘটনায় চরফ্যাশনের সাধারণ জনগণ চরফ্যাশন আধুনিক হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে বয়কটের অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি৷

উপজেলার জলবায়ু ফোরামের সহ-সভাপতি মনির আসলামী জানান, পরিচ্ছন্ন কর্মী ঝরনা রানী ব্লাড সংগ্রহের কি বুঝে৷ সেতো টেকনোলজিস্ট নয়৷ তার পরেও ভুলের জন্য সকলের নিকট ক্ষমা চেয়েছেন৷ এরপরেও চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু যারা একাজ তাকে দিয়ে করিয়েছেন তাদের কোন শাস্তি হয়নি৷ কারণ তারা উচ্চবিত্ত৷
শীর্ষবাণী/এসএস