চরফ্যাশনে ফেক ফেসবুক আইডির ছড়াছড়ি, বিপাকে সাধারণ মানুষ!

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন: সাম্প্রতিক সময়ে চরফ্যাশনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের ফেক আইডি অকল্পনীয়ভাবে বেড়ে গেছে৷ প্রকৃত ফেসবুক ব্যবহারকারী ও সাধারণ মানুষের সামাজিক, আর্থিক, রাজনৈতিক এমনকি ব্যক্তি ইমেজ নষ্ট করতে, একটি চক্র তিন ধরনের চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছেন৷ কারো ছবি দিয়ে তার নামে ফেক আইডি খোলা, প্রকৃত ফেইসবুক আইডি হ্যাক করা ও বেনামে ফেসবুক আইডি খুলে গুজব, অপপ্রচার, ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পোস্ট করতে দেখা যায়৷

অনুসন্ধানে দেখা যায়, চরফ্যাশন পৌর যুবলীগের সভাপতি হাজী শহীদুল্লাহ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিভাস কান্তি রায়, উপজেলা যুবদল সভাপতি আশরাফুর রহমান দিফু ও রেডিও মেঘনার উপস্থাপক মারিয়া তালুকদার জেসমিনসহ এমন অসংখ্য গণ্যমান্য ব্যক্তিদের ছবি ও নাম ব্যবহার করে ফেক আইডি খোলা হয়েছে৷

অন্যদিকে দেখা যায়, চরফ্যাশনের কেল্লা, চরফ্যাশন জেলা চাই, চরফ্যাশনের জনগণ, চরফ্যাশনের কথা বা ছেলেরা সুন্দর মেয়েদের ছবি দিয়ে শেফালি আক্তার, রুপালি আক্তার, সালমা আক্তার, বিউটি আক্তার, খালেদা আক্তার, সেলিনা অক্তার, এ ছাড়াও নীল কষ্ট, হৃদয় ভাঙা মন, মন মানে না, এমন বেনামে অসংখ্য ফেসবুক আইডি খোলা হয়েছে৷ এ ধরনের আইডি থেকে প্রতিদিনই কেউ না কেউ প্রতারিত হচ্ছেন। ফেসবুকে ফেক আইডি রীতিমতো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে চরফ্যাশনে৷ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে এখন ভয়ঙ্কর ফাঁদের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছে অপরাধীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চরফ্যাশন পৌরসভার এইচএসসি অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী শীর্ষবাণী ডটমককে জানান, ফেসবুকে পরিচয় থেকে বন্ধু, অতঃপর প্রেম, কিছুদিন ফোনে কথা বলার পর, দেখা করার সিদ্ধান্ত হল৷ গিয়ে দেখি ফেসবুক প্রোফাইলের ছবি আর ছেলেটা এক নয়৷ দুই সপ্তাহ পর শুনলাম সে বিবাহিত৷ তারপর থেকে আমি যোগাযোগ বন্ধ করে দেই৷ কিন্তু বিভিন্ন উপায়ে আমার নিকট মেসেজ পাঠিয়েছে, যোগাযোগ না রাখলে সেদিনের কিছু অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ফেসবুকে ছেড়ে দিবে৷ আমি এখন কি করবো!

ভুক্তভোগীরা লোকলজ্জায় কেউ আইনের সহায়তা নিতে চায় না৷ আবার কেউ নিজের আইডি থেকেই প্রতিবাদ জানাচ্ছেন৷ কেউবা থানায় জিডি করেছেন৷ ভুক্তভোগী ও সচেতন মহলের দাবি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ ধরনের আইডি বন্ধ করতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন৷
শীর্ষবাণী/প্রতিনিধি/এনএ