চরফ্যাশনে প্রতারকচক্রের খপ্পরে ২ সুপার, থানায় অভিযোগ

চরফ্যাশন অফিস: চরফ্যাশন উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ দেয়ার কথা বলে ২ মাদরাসা সুপারের নিকট থেকে ১৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে অজ্ঞাতনামা একটি প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ২ মাদরাসা সুপার আজ ৩১ মে চরফ্যাশন থানায় পৃথক পৃথক অভিযোগ দায়ের করেছেন।

চরফ্যাশন দক্ষিণ মোহাম্মদপুর রহমানিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা মোঃ ইউনুছ থানায় লিখিত অভিযোগে জানান, ২৯ মে বিকাল সোয়া ৫টায় তার ব্যবহৃত মোবাইল নং০১৭১৯-১২৩৬২৪ এ অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তি ০১৮৭০-৭৭২০২৭ মোবাইল নম্বর থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিসের ঠিকানা ব্যবহার করে ফোন দিয়ে জানায় উক্ত মাদরাসায় শিক্ষা অফিস থেকে একটি ল্যাপটপ দেয়া হবে। ওই প্রতারকচক্র ৯ হাজার টাকা খরচ দাবি করে একটি বিকাশ নম্বর ০১৮৯৩-৪৩২৫১৪ দেয়।

উক্ত বিকাশ নম্বরে তিনি খরচ সহ ৯১৮০টাকা পাঠান। এরপরেই প্রতারকচক্রটি বিকাশ নম্বরটি বন্ধ করে রাখে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রতারকচক্রটির কোন হদিস না পাওয়ায় আজ তিনি চরফ্যাশন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

চরফ্যাশন আমিনাবাদ ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা আলী আহাম্মদ থানায় লিখিত অভিযোগে জানান, ২৯ মে বিকাল ৫টা ২০মিনিটে তার ব্যবহৃত মোবাইল নং০১৭৩৩-৫৩২৯৩৮ এ অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তি ০১৮৭০-৭৭২০২৭ নং মোবাইল নম্বর থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিসের ঠিকানা ব্যবহার করে ফোন দিয়ে জানায় উক্ত মাদরাসায় শিক্ষা অফিস থেকে একটি ল্যাপটপ দেয়া হবে। ওই প্রতারকচক্র ৯ হাজার টাকা খরচ দাবি করে একটি বিকাশ নাম্বার ০১৮৯৩-৪৩২৫১৪ দেয়।

উক্ত বিকাশ নম্বরে তিনি খরচবাদে ৯ হাজার টাকা পাঠান। এরপরেই প্রতারকচক্রটি বিকাশ নম্বরটি বন্ধ করে রাখে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রতারকচক্রটির কোন হদিস না পাওয়ায় আজ তিনি চরফ্যাশন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

চরফ্যাশন থানার ডিউটি অফিসার এ এস আই তাজুল ইসলাম পৃথক দুটি অভিযোগ পেয়েছেন বলে শীর্ষবাণী ডটকমকে নিশ্চিত করেছেন।
শীর্ষবাণী ডটকম/প্রতিনিধি/এনএ