চরফ্যাশনের মেঘনায় নিখোঁজ জসিমের লাশ ৫৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার, দাফন সম্পন্ন

মাইন উদ্দিন জমাদার, মনির আসলামী, শাহাবুদ্দিন শুভ: ভোলার চরফ্যাশনের আছলামপুরের আয়েশাবাগ গ্রামে মেঘনা নদীর তীরে দাঁড়িয়ে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ জেলে জসিম উদ্দিন (৪০) এর লাশ প্রায় ৫৩ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছে স্থানীয় জেলেরা। প্রত্যক্ষদর্শী জামাল ও রিয়াজ শীর্ষবাণীকে জানায়, আজ ২৬ জুলাই বিকাল আনুমানিক পৌনে ৪টায় তার লাশ ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, চরফ্যাশনের আছলামপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আয়েশাবাগের বেড়ীর মোড় এলাকার মহসিন বেপারীর ছেলে মোঃ জসিম (৪০) গত ২৪ জুলাই শুক্রবার সকাল ১১টায় বেতুয়া সংলগ্ন মনির মিয়ার ইট ভাটার পিছনে মেঘনা নদীতে ঝাকি জাল দিয়ে নদীতে ফেলে মাছ শিকার করতে যায়। জাল নদীতে ফেলার সময় তীরে দাঁড়ানো অবস্থায় হঠাৎ পায়ের নিচের মাটি সরে গেলে জসিম মেঘনার গভীর জলে তলিয়ে যায়।

জসিমের শ্বশুর কিতাব আলী শাহ শীর্ষবাণীকে বলেন, জাল মারার সাথে সাথে নদীর কিনারে ফাটল ধরে নদীতে জসিমসহ তলিয়ে যায়। জসিম তাৎক্ষণিক হাত থেকে জালের রশি খুলতে পারেনি। মূহুর্তেই তলিয়ে যায় জসিম। স্থানীয় লোকজন দেখে খোঁজা-খুঁজি করে ও পরে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

খবর পেয়ে চরফ্যাশন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা এমরান হোসাইন সহ দমকল কর্মীরা দুর্ঘটনাস্থলে এসে বরিশালের ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ডুবুরি দলকে খবর দেয়। বিকালে ডুবুরি দল চরফ্যাশনে পৌঁছে বেতুয়ার মেঘনায় নিখোঁজ জসিমকে খুঁজতে মেঘনা নদীতে নামার চেষ্টা করে। ওই দিন রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত চেষ্টা করেও প্রবল স্রোতের কারণে নদীতে নামতে না পারায় উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করে চরফ্যাশনে চলে আসে। পরদিন ২৫ জুলাই সকাল ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ৩ ঘণ্টা উদ্ধার অভিযান শুরু করতে চেষ্টা করে। প্রবল স্রোতের কারণে ডুবুরি দল ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দুপুর ১২টায় উদ্ধার অভিযান স্থগিত করে। ওই দিনই ডুবুরি দল বরিশালে ফিরে যায়।

আজ ২৬ জুলাই মেঘনা নদীর ঘটনাস্থলের দক্ষিণ দিকে জসিম উদ্দিনের লাশ ভাসতে দেখে মেঘনায় মাছ ধরা জেলেরা। জেলেরা বেতুয়া সংলগ্ন ঘাটের লোকজনের সহায়তায় জসিম উদ্দিনের লাশ নিখোঁজ স্থলের কিছুটা দক্ষিণ দিকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করে।
খবর পেয়ে চরফ্যাশন থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সামছুল আরেফিনসহ পুলিশ সদস্যরা বেতুয়া ঘাটে ছুটে যায়। বিকেলে এ রিপোর্ট লেখার সময় জসিম উদ্দিনের জানাজা শেষে তার শ্বশুর বাড়ির দরজায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে জসিম উদ্দিনের লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে বেতুয়া ঘাট সংলগ্ন মেঘনা পাড়ে শত শত লোকের ভীড় জমে। ভীড় সামলাতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যাপক তৎপর দেখা গেছে।
শীর্ষবাণী ডটকম/প্রতিনিধি/এনএ