চরফ্যাশনের দুলারহাটে ইমামকে মারধর, ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আটক

আমিনুল ইসলাম, চরফ্যাশন: ভোলার চরফ্যাশনে দুলারহাট থানা এলাকায় ঈদের নামাজ না পাওয়ায় ইমামকে মারধর করার অভিযোগে নুরাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাজী ফিরোজ কিবরিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজ ৩ আগস্ট সোমবার দুপুর দেড়টায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শনিবার ১ আগস্ট দুলারহাট থানার নুরাবাদ সামছল হক কমান্ডার বাড়ির দরজায় বায়তুন নুর জামে মসজিদে ঈদের নামাজের সময় অতিবাহিত হওয়া নিয়ে ইমামকে হুমকি ও মারধরের ঘটনা ঘটে।

উক্ত মসজিদের ইমামকে মারধরের ঘটনায় দোষী ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের জন্য রোববার ২ আগস্ট বিকালে দুলারহাট বাজার এলাকায় কওমী মাদরাসা ছাত্রদের ব্যানারে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে।

বায়তুন নুর জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা নুর হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন, ৩১ জুলাই শুক্রবার মসজিদ কমিটির সভাপতি মৌলভী আবুল কাশেম সহ মুসল্লীরা ঈদের নামাজ সকাল সাড়ে ৮টায় পড়ার সিদ্ধান্ত দেন। যথারীতি সকাল ৯টা ১০মিনিটে নামাজ শেষ হয়। এরপর নুরাবাদ বিএনপির সভাপতি হাজি ফিরোজ কিবরিয়া তাৎক্ষণিক মুসল্লীদের সামনে আমাকে মারধর করে হুমকি প্রদর্শন করে।

স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে সুবিচার না পেয়ে দুলারহাট থানায় অভিযোগ দায়ের করি।

মসজিদ কমিটির সভাপতি বিএনপি নেতা ফিরোজ কিবরিয়ার পিতা মৌলভী আবুল কাশেম বলেন, তার ছেলে ইমামকে মারধর করেনি, শুনেছি নির্দিষ্ট সময়ে ঈদের জামাতে নামাজ না পেয়ে উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করেছে। ইমামকে মারধর করার অভিযোগ সত্য নয়।

দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল হোসেন খান বলেন, ইমামকে মারধরের ঘটনায় থানায় অভিযোগ এসেছে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে সোমবার দুপুরের দিকে এলাকা থেকে হাজি ফিরোজ কিবরিয়াকে আটক করা হয়েছে।
শীর্ষবাণী/এনএ